মেনু নির্বাচন করুন
পাতা

এক নজরে

আমাদের ঐতিহ্যবাহী জীবন ঘনিষ্ঠ মৃত্তিকা সংলগ্ন সংস্কৃতির বিকাশ সাধনের স্বপ্ন নিয়ে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ১৯৭৪ সালে বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি প্রতিষ্ঠা করেন। কালের আবর্তে তার রোপিত সংস্কৃতির ধারক সেই বৃক্ষটি আজ ৪০ বছরে ফুলে ফলে সুশোভিত, নানা কর্মকান্ডে দেশব্যাপী পরিব্যাপ্ত, বিশ্ব পরিমন্ডলে সমাদৃত। দেশের ৬৪ টি জেলায় ১৯৮৯ সালে ০৭ মার্চ জেলা শিল্পকলা একাডেমি প্রতিষ্ঠা হয়। সর্বপ্রথমে এটি রাজশাহীর মনিবাজারস্থ একটি টিন সেট ঘরে এটির প্রথম স্থাপিত হয়। পরবর্তীতে তৎকালীন জেলা প্রশাসক মহোদয়কে সভাপতি করে পাঁচ সদস্য বিশিষ্ট একটি কমিটি মাধ্যমে এটি যাত্রা শুরু করে। জেলা প্রশাসক মহোদয়ের হস্তক্ষেপে স্থানীয় ভূমি অফিসের সহযোগিতায় পর্যটন মোটেল সংলগ্ন শ্রীরামপুর এলাকায় স্থানীয় সংস্কৃতি মনাদের আন্তরিকতায় দোতালা ভবন নির্মাণ করা হয়। কালের আবর্তে ধীরে ধীরে এটি আরও বেশি প্রচার প্রসার ঘটে এবং একটি শিল্পীদল গঠন করা হয়, যার নাম ছিল “শিল্পীপুল”। ধীরে ধীরে এই শিল্পীরা বিভিন্ন সময় জাতীয় অনুষ্ঠান সহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের আমন্ত্রণে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পরিবেশন করেন। ১৯৯২ সালে শিল্পীপুল বিলুপ্ত করে প্রশিক্ষণ কেন্দ্র গঠন করা হয়। যেখানে নৃত্য, সংগীত, আবৃত্তি, নাটক, চারুকলা, গীটার, তবলা প্রশিক্ষণের মাধ্যমে শিল্পী সৃষ্টি করার কার্যক্রম শুর হয়। অতপর স্থানীয় অনেক গুণী শিল্পী এই একাডেমি থেকে প্রশিক্ষণ কোর্স সমাপ্ত করেছেন এবং বেতার,  টেলিভিশনে স্ব-স্ব বিষয়ে পরিচিতি লাভ করেছে। পরবর্তীতে ২০০৪ সালে সরকারী অনুদানে একটি অডিটোরিয়াম সহ ১ম-তৃতীয় তলা ২৪ রুম বিশিষ্ট একটি ভবন নির্মাণ করা হয়। বর্তমানে এই একাডেমিতে ১১ জন প্রশিক্ষক ও ০২ জন তালযন্ত্র সহকারীবৃন্দ নিয়ে প্রশিক্ষণ কেন্দ্র চালু রয়েছে। এছাড়াও একজন কর্মকর্তা  এবং ০৭ জন কর্মচারীবৃন্দ এই একাডেমিতে বর্তমানে কর্মরত রয়েছেন।

ছবি


সংযুক্তি


সংযুক্তি (একাধিক)



Share with :

Facebook Twitter